সুখী

সুখী

নিশুত সারাদিন কাজের কাজ হোক কিংবা অকাজের কাজ, কিছু একটা নিয়েই ব্যাস্ত থাকতে পছন্দ করে। কোন কাজ ছাড়া এমনি বসে থাকতে সে ভয় পায়! ভয় টা মন খারাপের। একুয়া রেজিয়ার লেখা একটা গল্পে সে পড়েছে, পৃথিবীতে মন খারাপ হওয়ার ব্যাপারটা ভীষণ অদ্ভুত। কখনও একটা গান শুনে কিংবা ফ্যাকাসে দেয়ালের রঙটা দেখে কিংবা খুব তুচ্ছ একটা কারণেও মনটা হুট করে খারাপ হয়ে যায়। এটা নিয়ে নিশুতেরও নিজস্ব একটা ফিলসোফি আছে। তার মনে হয় মানুষ যখন একাকীত্ব অনুভব করে তখনই তার মাথায় এক ধরণের বায়স্কোপ শুরু হয়। এটা এক আজব বায়স্কোপ! মানুষ নিজেও জানে না এই বায়স্কোপে ঠিক কোন জিনিসটা সে দেখতে যাচ্ছে, ভাবতে যাচ্ছে! শুধু জানে এই বায়স্কোপ দেখার পর তার অবশ্যই মন খারাপ হবে! চাইলেই মানুষ এই বায়স্কোপ দেখা বাদ দিতে পারে না। কারণ একবার শুরু হলে এই বায়স্কোপ তার আপনমনে চলতে থাকে! মানুষ নিজেই থামার আগ পর্যন্ত অদ্ভুত এই বায়স্কোপ থামে না!

নিশুতের এখন কিচ্ছু করার নেই। একটা ছবি এঁকে সময় কাটানোর চিন্তা করছে সে। কিন্তু বিষয়বস্তু ভাবতে গিয়েই আর বেশিদুর ভাবতে ইচ্ছে করে না তার। ছবির ভাবনা বাদ দিয়ে নিশুত একটা গল্প লিখবে ভাবে। একটা ছেলের গল্প, ছেলেটার প্রেম টাইপ কিছু একটা আর না পাওয়ার দুঃখ সাদা শরতের একাকী ঘুরে বেড়ানো মেঘের গল্প! পরক্ষণেই আবার নিশুতের মনে হয় একটা ছেলের সাথে প্রেম কিংবা না পাওয়ার গপ্পো এই বয়সে এসে খুব লেইম হয়ে যায়। বিশ্রী টাইপ লেইম একদম! অতএব এটাও বাদ।

নিশুত জানে মাথা দপদপ করে ভিতরে ভিতরে রাগে ফেটে পড়ার কোন মানে হয়না, তবুও জানালার পাশে রাখা গিটারটা এখনই হঠাৎ বিক্রি করে দেওয়ার মতো প্রচন্ড একটা ঝোঁক উঠে যায় নিশুতের মাথায়। কিছু না করতে পেরে ব্যালকনি থেকে একবার হেঁটে এসে, বোকা বাক্সের সামনে বসে পড়ে নিশুত। নীল সাদা পর্দার আড়ালে ঘুড়ে বেড়ায়! তারপর নীল সাদা পর্দা কেটে, বুকমার্ক থেকে খুঁজে বের করে তার খুব প্রিয় একজন লেখক নটার নাটাই-এর আগেকার প্রিয় লেখাগুলো।

কিছু প্রিয় লাইন নিশুত আবার পড়ে, “”তোমার চোখ দু:খ ধোয়া ছিলো। সেটা ছয় ফিট দূরে বসে আমি পড়তে পারছিলাম, আমার মাইওপিয়াগ্রস্থ চোখ দিয়ে। কে বললো বলো আমি দূরে দেখতে পাই না? কে বললো বলো আমি তোমাকে দেখতে পাই না কাছে?””

মাথার দপদপ বাড়তে থাকে, আর এই সময়টা একদমই টানছে না নিশুতকে। হ্যাঁ, নিশুত এখন বায়স্কোপ দেখছে! বোকা বাক্সে গান ভাসছে…

♪♪ ওরে জোয়ার ভাটায় ঘোরে ফিরে,
সাগর কিন্তু শুকায় নারে,
আরে তেমনি মানুষ ঘোরে ফিরে,
মনসুর কয় বাহরে, বাহ!
কে বলে মানুষ মরে রে,
আমি বুঝলাম না ব্যাপার!
এই মানুষ মরলে পড়ে, বিচার হবে কার?
আমি বুঝলামনা ব্যাপার! ♪♪
…..জগতের সকল আত্মা সুখী হোক…..

গল্পের বিষয়:
ছোট গল্প

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত