প্রেমের বিয়ে

প্রেমের বিয়ে

রান্না ঘরে উঁকি মেরে দেখি মা রান্না করছে৷ আমি মার কাছে গিয়ে বললাম,

–মা আমার বুকের বাম পাশে ব্যাথা করছে। মা আমার দিকে না তাকিয়েই বললো,

~ওয়ারড্রোবের ২ নাম্বার ডয়ারে দেখ এন্টারসিড প্লাস ট্যাবলেট আছে খেয়ে শুয়ে থাক। ভালো হয়ে যাবে।
আমি মাকে বললাম,

— মা সব বুকের ব্যাথায় গ্যাস্ট্রিকের ব্যাথা না। কিছু কিছু ব্যাথা হৃদয় ঘটিত কারনেও হয়। আমার হৃদয় ভেঙে গেছে। আমি ছ্যাঁকা খেয়েছি তাই ব্যাথা করছে। মা আমার দিকে আগ্নিময় দৃষ্টিতে তাকিয়ে বললো,

~একটা মানুষের হৃদয় কয়বার ভাঙে? তোর তো দেখছি প্রতিমাসেই হৃদয় ভাঙে। প্রতিবার ছ্যাঁকা খেয়ে এসে আমার সামনে বে বে করে কাঁদিস। এখন আমার সামনে থেকে যা মন মেজাজ এমনিতেই খারাপ তা না হলে হাতের এই গরম কুন্তি দিয়ে তকে সত্যি সত্যি জনমের ছ্যাঁকা খাওয়াবো বলে দিলাম। মার কথা শুনে মনে হলো মা খুব রেগে আছে। এইখানে থাকলে ঝামেলা হতে পারে। তাই মার কাছ থেকে এসে ছোট বোনের রুমে উঁকি দিলাম। ছোট বোন দেখি টেবিলে বসে খুব মনোযোগ সহকারে পড়ছে। আমি ছোটবোনের বিছানাতে বসতে বসতে বললাম,

— বোনরে জীবনটা বেদনা দায়ক। এই জগৎতে নিঃস্বার্থ ভালবাসার কোন দাম নাই। বোন দেখি আমার কথায় পাত্তাই দিচ্ছে না। তাই আমি জোরে জোরে দীর্ঘশ্বাস ছাড়তে লাগলাম..
~ওই তোর সমস্যা কি? তুই আমার রুমে এসে ষাড়ের মত হুশ হাশ করছিস কেন?
— বোনরে আমার হৃদয় ভেঙে গেছে।

~তোর হৃদয় ভাঙে গেছে তুই তোর রুমে গিয়ে সুপারগ্লো দিয়ে হৃদয় জোড়া লাগা আমার রুমে কি?? কাল আমার পরীক্ষা সামনে থেকে যা বড় ভাই হওয়ার পরেও ছোট বোনের হাতে রাম ধমক খাওয়ার পর নিজের রুমে আসলাম। আমার এই হৃদয় ভাঙার কষ্ট কেউ বুঝে না।  তাই মোবাইলে আরমান আলিফের গান ছাড়লাম, তোমার নেশাই পইরা আমি হইলাম দিওয়ানা, তোমার জন্য হারাই গেল আমার ঠিকানা। আমি গান শুনছি আর একমনে সিগারেট টেনে যাচ্ছি। এমন সময় খেয়াল করলাম কে যেনো পিছন থেকে কাঁধে হাত রাখলো। পিছনে ঘুরে তাকিয়ে দেখি বাবা। আমি কোন রকমে সিগারেটটা লুকাতে চাচ্ছিলাম কিন্তু পারছিলাম না। বাবা আমার দিকে তাকিয়ে বললো,

~দে তোর সিগারেটটা একটু দে। এই জ্বলন্ত সিগারেটে দুইটা টান দেয়। আমি অবাক হয়ে বললাম,
— বাবা তুমি সিগারেট খাবে না কি?
~হে খাবো
–তুমি কেন সিগারেট খাবে?
~তুই কেন খাচ্ছিস??আমি অশ্রুসিক্ত নয়নে বললাম,
— আমার হৃদয় ভেঙে গেছে। আমার হৃদয় ভাঙার কষ্ট কেউ বুঝে না তাই আমি সিগারেট খাচ্ছি।
~তোর তো ভাঙা হলেও হৃদয়টা আছে কিন্তু আমার কোন হৃদয় নাই সেই কষ্টে আমি সিগারেট খাবো।
— মানে কি!! ৭ বছর মার সাথে প্রেম করার পর বিয়ে করেছো। তুমি তো সফল প্রেমিক৷ ভালবাসার মানুষকেই বিয়ে করতে পেরেছো তা হলে সমস্যা কি? বাবা আমার দিকে তাকিয়ে একটা দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে বললেন,

— বাবারে আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ভুল এই প্রেম করে তোর মাকে বিয়ে করা।
বাসর রাতে ৫ মিনিট দেরি করে রুমে ঢুকিছিলাম দেখে তোর মা আমাকে ৫ ঘন্টা রুমের বাহিরে রেখেছিলো। অথচ আমি যদি প্রেম করে বিয়ে না করতাম তাহলে আমাকে রুম থেকে বের করবে দূরের কথা আমার ভয়ে সারারাত কাঁপতো।

ছোটবেলা থেকে স্বপ্ন দেখতাম বিয়ের পর প্রতিদিন সকালে আমার ঘুম ভাঙ্গবে বউয়ের ভেজা চুলের পানি দিয়ে আর ঘুম থেকে উঠে এককাপ চায়ে স্বামী স্ত্রী ২ জনেই ঠোঁট ভিজাবো। কিন্তু বিশ্বাস কর বাবা এই স্বপ্ন আমার পূরণ হয় নি।
বিয়ের পর থেকে প্রতিটা সকাল আমার কষ্টের গেছে। উল্টো আমাকে তোর মায়ের জন্য নাস্তা তৈরি করতে হতো।
কিন্তু আমি যদি প্রেম না করে অন্য মেয়েকে বিয়ে করতাম তাহলে ঠিকিই আমার এই স্বপ্ন পূরণ হতো।
বন্ধুদের মুখে শুনেছি জামাই আদর কি জিনিস৷ জামাই শ্বশুরবাড়িতে গেলে খাওয়া দাওয়ার ধুম পড়ে যায়। শাশুড়ি নানা রকম পিঠা তৈরি করে শ্বশুর বাজারের সবচেয়ে বড় রুই মাছটা কিনে আনে । কত আদর যত্ন করে শ্বাশুড়ি এইমাছ রান্না করে খাওয়াই।

কিন্তু বাবা এইসব আমার কপালে জুটে নি কারণ তোর মার সাথে প্রেম করে পালিয়ে বিয়ে করেছিলাম। আমার শ্বশুর শাশুড়ি তা মানতে পারে নি। তাই আমি শ্বশুরবাড়ি গেলে আমার কপালে জুটতো পোল্ট্রি মুরগী আর তার সাথে হলেন্ডের বড় বড় আলু। আলু দেখে মনে হতো আমি আলু খাবো, না কি আলু আমাকে খাবে।

আমার তো টাকা পয়সার অভাব নেই তারপরেও আমি কেন অফিসে ওভারটাইম করি কারণ আমি যতক্ষণ অফিসে থাকি ততক্ষণ সময় আমার কাছে স্বর্গ মনে হয়। বাসায় আসলে তোর মার চিৎকার চেঁচামেচি ভালো লাগে না।
তাই বাবা প্রেম করা হৃদয় ভাঙা এইসব চিন্তা বাদ দে। ভালো ফ্যামেলি দেখে খুব সুন্দর একটা মেয়ে বিয়ে করাবো। বিয়ের পর বউয়ের ভালবাসাও পাবি জামাই আদর ও পাবি। আমার মত প্রেম করে বিয়ে করলে কিছুই পাবি না।
তাই বুকের যে পাশে ব্যাথা করছে সেই পাশে হাত রেখে বল, আমি গর্বিত আমি সিঙ্গেল আমি গর্বিত আমি প্রেম করি না। দেখবি ব্যাথা ভালো হয়ে গেছে এমন সময় মা রুটি বানানোর বেলান হাতে নিয়ে রুমে এসে বললো,

~ রাত তো ১১ টা বাজে মশারি টানাবে কখন? যাও বলছি এখনি মশারি টানাও গিয়ে আমি বসে বসে চিন্তা করছি বাবা যা বলেছে সব ঠিক বলেছে। তাই বুকের বা পাশে হাত রেখে বললাম, আমি গর্বিত আমি প্রেম করি না। তারপর আরমান আলিফের ছ্যাঁকা খাওয়া গান বাদ দিয়ে শুনতে লাগলাম, ও ডিজে ও ডিজে একটা যাকানাকা গান বাজা

গল্পের বিষয়:
রোমান্টিক

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত