পাগলী বউ

পাগলী বউ

– এই শুনো?
– কী বলো?
– তোমার মোবাইল টা রেখে যাও প্লিজ (তিথি)
– কেন?
– দরকার আছে।

আমার বউ তিথি বিয়ে করছি আজ দুই বছর হল, খুব সুখে আছি কিন্তু একটা সমস্যা আমার বউ এর এতো রাগ একবার রাগ করলে, তার রাগ ভাংতে আমার কত যে কষ্ট হয়। এখন অফিসে যাবো, তিথি কেন জানি আজ আমার মোবাইল চাইলো, আমি কিছু না বলে দিয়ে দিলাম, আমার দুই টা মোবাইল তাই একটা দিয়ে দিলাম, পরে অফিসে চলে গেলাম। বিকালে তাকে কল দিলাম কিন্তু কল কেটে দেয়, আমি বুঝে গেছি কিছু একটা হইছে তাই কল ধরে না। পরে অফিস থেকে চলে গেলাম বাসায় আজ কপালে কী আছে আল্লাহ জানে?

– টং টং টং দরজা খুলো তিথি?
– [বাসা থেকে কোন শব্দ আসছে না]
– তিথি কথা বলো না কেন দরজা খুলতে বলছি?
– [দরজা খুললো]
– কী হয়েছে তোমার কথা বলো না কেন?
– [এখনো কথা বলে না তিথী]
– কথা বলো না কেন, বিকেলে কল দিয়েছি কল ধরলে না কেন?
– আমি কাল বাড়িতে চলে যাবো।
– হঠাৎ বাড়ি যাবে কেন, আমি কী বলেছি তোমাকে?
– কিছু ও করনি তুমি অনেক ভালো ছেলে, তোমার ফেসবুক আইডি দেখলাম তো, অনেক ভালো ছেলে তুমি।[কাঁদতে কাঁদতে বলে]

পরে আমার ফেসবুক আইডি চেক করে দেখি কী হল? ওমা! এটা কী আমার বউ আমার আইডিতে ঢুকে আমার বান্ধবী দের সাথে চ্যাটিং করলো। এভাবে…..

– তোমাকে আজ শুধু মনে পড়ে! (তিথি)
– সত্যিই আমি তোমাকে ভালোবাসি বলে তাই আজ আমাকে মনে পড়ে! (বিথী) [বাঁশ খাইলাম]
– তুমি কী আমাকে ভালোবাসো? (তিথি)
– তোমাকে না পেলে আমি বাঁচবো না! (লামিয়া) [মরে যা তুই আমার 12টা বাজায় দিলি]
– তুমি কী কাউকে ভালোবাসো? (তিথি)
– হ্যাঁ ভালোবাসি! (নওশী)
– কাকে ভালোবাসো? (তিথি)
– তোমাকে।

(নওশী) [হাইরে সব শেষ করলি] আমি মেসেজ দেখে, নিজে অবাক হয়ে গেছি বউ কে কী বলবো।

– তুমি বিশ্বাস করো ওরা মিথ্যা কথা বলেছে, আমি শুধু তোমাকে ভালোবাসি।
– তুমি ডিনার করে নেও। (তিথি)
– আমি কিছু ও খাবো না,তুমি খেয়ে নেও, প্লিজ তুমি বিশ্বাস করো।
– আমি খাবো না, তুমি খেয়ে নেও। (তিথি)
– আমার কথাই দাম দিবে না, ঠিক আছে?
– তোমার কথা একটা ও বিশ্বাস করবো না, তুমি আমাকে ধোঁকা দিয়েছো, তুমি আমার সাথে একটা ও কথা বলবে না, আমি আজ একা ঘুমাবো, তুমি আমার সাথে থাকতে পারবে না। (তিথি) [কাঁদতে কাঁদতে আমাকে বলে]

– তাহলে তুমি বিশ্বাস করবে না, আমাকে ছাড়া থাকতে পারবে তুমি?
– হ্যাঁ পারবো।

আজ আমার পাগলীটা খুব রাগ করছে তার রাগ কী ভাবে ভাংবো আমি চিন্তাই পড়ে গেছি সত্যিই যদি কাল চলে যাই, আমার কী হবে, সত্যিই আমি তিথিকে অনেক ভালোবাসি, তাকে ছাড়া এক মহূর্ত থাকতে পারি না, তিথি ও আমাকে অনেক ভালোবাসে। কি আর করবো চোপায় গিয়া বসে আছি, সে আমাকে ছাড়া এক মিনিট ও থাকতে পারবে না তা আমি জানি। দুই ঘন্টা পরে….

– তুমি ঘুমাওনি? (তিথি)
– তোমাকে ছাড়া আমার ঘুম আসে, যাও তুমি ঘুমাও, আমি এভাবে থাকবো? [আমার চোখে পানি চলে এসেছে]

– তিথি আমার কথা শুনে দৌড়ে এসে আমাকে জড়িয়ে ধরে বলে, আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি, তোমাকে ছাড়া আমি একা থাকতে পারি না, আমি জানি তুমি এমন না, আমার রাগ চলে আসছে তাই আমি এতো কিছু বলেছি। তুমি জানো আমার কত কষ্ট হয়েছে।

– আমি জানি তুমি আমাকে ছাড়া থাকতে পারবে না, আমার ভালোবাসা সবটুকু তুমি পাবে আর কেউ না আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি, এখন আর একটুও কাঁদবে না, এখন রাগ কমলো তো… চল আমরা ডিনার করে ঘুমিয়ে পড়ি, ভালোবাসার মধ্যে কিছু দুষ্টু মিষ্টি পাগলামী না থাকলে কি ভালোবাসা জমে চলতে থাকুক না,,, কিছু খুনসুটি ভালোবাসা

সমাপ্ত

গল্পের বিষয়:
রোমান্টিক

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত