রক্তের দর্পণে

রক্তের দর্পণে

ভুলতে পারিনা তোমার সুনিপুন মায়াবী মুখচ্ছবি
যতই চাই না ভুলতে , ততই সুস্পষ্ট প্রতিচ্ছবি
ভেসে উঠে পাঁজরের ফ্রেমে রাখা রক্তের দর্পণে,
কাজল কালো ডাগর দু’টি আঁখি, কাতর চাহনি,
আধূলী সুগোল হাসির ঠোল, রাঙা কপোল
নীল তিল ঝিলমিল, হাসি উচ্ছ্বল খিল খিল,
রসাল রাঙা ঠোঁটে গোধুলি আবীরে হাসির রেখা
মেঘ কালো মেঘে কেশবতী কন্যার আষাঢ়ে পাহাড়ী ঢল
ঢলে জলে জোয়ারে মায়ার সোহাগে হৃদয় ভাসে,
বারে বারে ছবি প্রতিচ্ছবি হয়ে ফিরে ফিরে আসে
অজান্তে অসময়ে অবুঝ হৃদয়ের তরলে দর্পণে
ভাল লাগা অজানা অদ্ভুদ শিহরনে সদা মুগ্ধ করে
ভাবতে ওগো কি জানি কেন এত যে লাগে ভাল
ভাল লাগে দিবা নিশি দূর আকাশের নীলে
মায়াবী মেঘের কোলে দোলে দোলে দোলে
কল্পণার পাখায় উড়ে উড়ে আনমনে দূর দিগন্তে
তোমায় নিয়ে হাওয়াই চাদরে ভেসে বেড়াতে।

ভাল লাগা যদি হয় অবুঝ মনের সোহাগী মায়া
ষষ্ট ইন্দ্রীয় শিহরনে হৃদয়ের তরলে মায়াবী দোলা
তবে আসুক -বারবার হাজারবার মায়ার প্রতিচ্ছায়া
ভাল লাগা অজানা অনুভূতি মাধবী লতার ছোঁয়ায়
অজানা শিহরনে কেঁপে উঠুক বক্ষ পিঞ্জরে সোহাগী হৃদয়
ভরে উঠুক পাঁজরের শুন্য গহ্বর অনন্ত ভালবাসায়
রক্তের তরলে দর্পণে দোলে উঠুক তোমার মায়াবী হৃদয়।

গল্পের বিষয়:
কবিতা

Share This Post

আরও গল্প

সর্বাধিক পঠিত